হিসাবচক্রের ধাপসমূহ | Accounting Theory & Practice

হিসাবচক্রের ধাপসমূহ আজকের ক্লাসের আলোচনার বিষয়। [ Steps of Accounting Cycle ] হিসাবচক্রের ধাপসমূহ ক্লাসটি পলিটেকনিক [Polytechnic] এর একাউন্টিং থিউরি এন্ড প্র্যাকটিস ৬৫৮৫১ [ Accounting Theory & Practice, 65851 ] বিষয়ের, ৪র্থ অধ্যায়ের [Chapter 4] অংশ।

হিসাবচক্রের ধাপসমূহ

হিসাব চক্রের ধাপগুলি কী হবে তা নির্ভর করে কোনো প্রতিষ্ঠান কীভাবে তার হিসাবরক্ষণ প্রক্রিয়া পরিচালিত করবে তার ওপর। এজন্য প্রতিষ্ঠানের হিসাব চক্রের ধাপসমূহ বিভিন্ন রকম হতে পারে। সাধারণভাবে হিসাব চক্রের যে সকল ধাপ হতে পারে তা নিম্নে আলোচনা করা হলো

হিসাবচক্র এর ধারণা
১. লেনদেন সনাক্তকরণ (Identifying transactions) :-

প্রতিষ্ঠানে যে সকল ঘটনা ঘটে তার সবগুলো লেনদেন নয়। এজন্য হিসাব চক্রের প্রথম কাজ হবে সবগুলো ঘটনা থেকে যে ঘটনাগুলো লেনদেন সেগুলো বাছাই করা। যে সকল ঘটনা সম্পত্তি ও দায়ের পরিবর্তন ঘটায় এবং অর্থ দ্বারা পরিমাপ করা যায় সেগুলোই আর্থিক লেনদেন।২. লিপিবদ্ধকরণ (Recording) :-হিসাব চক্রের প্রথম আনুষ্ঠানিক ধাপ হলো বাছাইকৃত লেনদেনগুলো দুতরফা দাখিলা পদ্ধতি মোতাবেক তারিখের ক্রমানুসারে জাবেদা ভুক্তকরণ। সর্ব প্রথম এ বইতে লেনদেনগুলোকে লিখা হয় বলে একে প্রাথমিক হিসাবের বইও বলা হয়।

৩. শ্রেণিবদ্ধকরণ (Classifying) :-লিপিবদ্ধ লেনদেনগুলো তাদের প্রকৃতি অনুযায়ী খতিয়ানভূক্তকরণ হচ্ছে হিসাব চক্রের তৃতীয় ধাপ। জাবেদায় লিপিবদ্ধকৃত প্রতিটি লেনদেনের আলাদা আলাদা হিসাব খুলে খতিয়ানভুক্ত করা হয়। হিসাবকাল শেষে প্রতিটি হিসাবের জের টানার মাধ্যমে প্রতিটি হিসাবের ফলাফল জানা যায়।

৪. সংক্ষিপ্তকরণ (Summarizing) :-

হিসাবচক্রের ৪র্থ ধাপে রেওয়ামিল তৈরি করা হয়। খতিয়ানের হিসাবগুলোর গাণিতিক নির্ভুলতা যাচাই করার জন্য কোনো নির্দিষ্ট তারিখে একটি পৃথক পাতায় বা কাগজে হিসাবের জেরগুলোকে “ডেবিট” ও “ক্রেডিট” এ বিভক্ত করে যে বিবরণী তৈরি করা হয় তাকে রেওয়ামিল বলা হয়। আর্থিক বিবরণী তৈরির পূর্বে রেওয়ামিল তৈরি করা হয়।

৫. সমন্বয় প্রক্রিয়া (Adjustment process) :-

রেওয়ামিল তৈরি করার পর কিন্তু আর্থিক বিবরণী তৈরি করার পূর্বে অনেক সময় দেখা যায় আয়/ব্যয় অগ্রিম অথবা বকেয়া রয়েছে যা হিসাবভুক্ত হয়নি। যে জাবেদার মাধ্যমে বকেয়া অথবা অগ্রিম আয় ও ব্যয়কে Accrual concept অনুযায়ী হিসাবভুক্ত করা হয়, তাকে সমন্বয় দাখিলা বলা হয়।

৬. সমন্বিত রেওয়ামিল প্রস্তুতকরণ (Preparing the adjusted trial balance) :-

হিসাবচক্রের ৪র্থ ও ৫ম ধাপের সমন্বয়ে সমন্বিত রেওয়ামিল প্রস্তুত করা হয়। অর্থাৎ রেওয়ামিল প্রস্তুতের পর যে সমন্বয়গুলো অসমন্বিত ছিল। সেগুলোকে সমন্বয় করে যে রেওয়ামিল তৈরি করা হয় তাকে সমন্বিত রেওয়ামিল বলে।
অ্যাকাউন্টিং থিউরি এন্ড প্র্যাকটিস সূচিপত্র
আমাদের গুগল নিউজে ফলো করুন

৭. আর্থিক বিবরণী প্রস্তুতকরণ (Preparing the financial statements) :-এ পর্যায়ে সমন্বিত রেওয়ামিলের সাহায্যে প্রতিষ্ঠানের আর্থিক বিবরণী তৈরি করা হয়। এ আর্থিক বিবরণী থেকে প্রতিষ্ঠানের লাভ-ক্ষতি, সম্পত্তি ও দায়ের পরিমাণ জানা যায়। এ ধাপের অংশগুলো হলো Income statement, Owner’s equity statement and Balance sheet.

আর্থিক বিবরণী প্রস্তুতের পর ব্যবসায়ের লাভ-ক্ষতি এবং সম্পদ ও দায়ের সঠিক চিত্র স্বার্থসংশ্লিষ্ট পক্ষসমূহের নিকট তুলে ধরা হয়। এ ছাড়া আর্থিক বিবরণীকে আরোও সুস্পষ্ট রূপে প্রকাশ করার জন্য হিসাববিজ্ঞান তুলনামূলক রেওয়ামিল ও উদ্বতপত্র, নগদ প্রবাহ বিবরণী, অনুপাত বিশ্লেষণ ও লেখচিত্র ইত্যাদির মাধ্যমে বিশ্লেষণ ও ব্যাখ্যা প্রদান করে থাকে।

৮. সমাপণী দাখিলা (Closing entry) :-

মুনাফা জাতীয় আয়ব্যয় হিসাব কাল শেষে সমাপনী দাখিলার মাধ্যমে বন্ধ করতে হয়। যে দাখিলার মাধ্যমে রেওয়ামিলের মুনাফা জাতীয় আয়ব্যয়গুলোকে আয় বিবরণীতে হস্তান্তর করে তাদের জের শূন্য করা হয়, তাকে সমাপনী দাখিলা বলা হয়

৯. সমাপনী উত্তর রেওয়ামিল (Preparing the post closing trial balance) :-

মুনাফা জাতীয় দফাগুলোর জের শূন্য করার পর বিভিন্ন সম্পত্তি ও দায়সমূহের জেরগুলো নিয়ে যে রেওয়ামিল তৈরি করা হয় তাকে Post closing trial balance বা সমাপনী পরবর্তী রেওয়ামিল বলে।

১০. বিপরীত দাখিলা (Reversing entries) :-

হিসাব চক্রের এ ধাপে পরবর্তী হিসাবকালের লেনদেনসমূহ লিপিবন্ধ করার সুবিধার্থে চূড়ান্ত হিসাব প্রস্তুত ও সকল হিসাব বই বন্ধ করার পর সমন্বয় দাখিলার বিপরীত দাখিলা দেওয়া হয়।

এটি বাধ্যতামূলক নয়, এটি ঐচ্ছিক। চলতি সালের বকেয়া আয়-ব্যয় ও অগ্রিম আয়-ব্যয় সমূহ লিখা হয়।

পরবর্তী হিসাব বছরের শুরুতে পূর্ববর্তী বছরের উদ্বর্তপত্রের সম্পত্তি ও দায়সমূহ চলতি বছরের হিসাবের খাতায় জাবেদা দাখিলার দেওয়ার মাধ্যমে নতুন বছরে কার্যক্রম শুরু হয়। এভাবে হিসাবচক্র পূর্ববর্তী বছরের সাথে বর্তমান বছরের বা বর্তমান বছরের সাথে পরবর্তী বছরের যোগসূত্র হিসাবে কাজ করে।

 হিসাবচক্রের ধাপসমূহ

হিসাবচক্রের ধাপসমূহ নিয়ে বিস্তারিত ঃ

 

Leave a Comment